মেরিটাইম সেক্টরে এখনো দক্ষ জনবলের অভাব রয়েছে : নৌপ্রতিমন্ত্রী

News News

Desk

প্রকাশিত: ১০:৩৭ অপরাহ্ণ, মার্চ ৬, ২০২৩

অনলাইন ডেস্ক : মেরিটাইম সেক্টরে দক্ষ জনবলের অভাব রয়েছে উল্লেখ করে নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, ‘মেরিটাইম সেক্টরে লেখাপড়ার জন্য মাত্র একটি মেরিন অ্যাকাডেমি ছিল। তৎকালীন সময়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান চট্টগ্রামে সেটি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চারটি মেরিন অ্যাকাডেমি প্রতিষ্ঠা করেছেন এবং আরও তিনটি মেরিন অ্যাকাডেমি করার ঘোষণা দিয়েছেন।

তবে বিষয় হলো, আমরা এ সেক্টরে এখনো দক্ষ জনবল পাচ্ছি না। বিদেশ থেকে কর্মী আনতে হচ্ছে। আমরা চাই, দেশের মেরিটাইম সেক্টর একটি উল্লেখযোগ্য অবস্থানে পৌঁছাক।

সোমবার (৬ মার্চ) রাজধানীতে সিরডাপ-এর ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স সেন্টারে বাংলাদেশ মেরিটাইম ল সোসাইটি আয়োজিত এক সেমিনারে তিনি এসব কথা বলেন।

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘মেরিটাইম সেক্টর যে একটি সম্ভাবনাময় খাত, এটি প্রথম উপলব্ধি করতে পেরেছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের পর মাত্র ২৬ দিনের মাথায় বাংলাদেশ তিনি শিপিং করপোরেশন গঠন করেছিলেন।

এর আড়াই বছর পর তিনি মেরিটাইম সেক্টর ল গঠন করেছিলেন। যুদ্ধের সময় আমাদের একমাত্র শিপিং পোর্টে পাকিস্তানিরা মাইন পুঁতে চলাচল বন্ধ করে দিয়েছিল। তখন বঙ্গবন্ধু তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের সঙ্গে মাইন অপসারণের জন্য যোগাযোগ করেন।’

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ‘সরকারের প্রচেষ্টায় এখন শিপইয়ার্ডগুলো সম্ভাবনাময় খাতে পরিণত হয়েছে। বাংলাদেশ এখন জাহাজ তৈরির পাশাপাশি বিদেশেও রপ্তানি করছে। একসময় এ ভূখণ্ডে খুলনা ও নারায়ণগঞ্জের শিপইয়ার্ডগুলো প্রাণবন্ত ছিল,

যা ধীরে ধীরে দুর্বল হয়ে গেছে। পরবর্তীতে ১৯৯৬ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এগুলোকে গতিশীল করার উদ্যোগ নেন। এছাড়া বেসরকারি সেক্টরে তিনি নানাভাবে সাহায্য করেছেন। ফলে অনেকেই এখন সে সেক্টরে আগ্রহী হচ্ছেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আইন তৈরি করা হয় কাউকে আটকানো নয় বরং শৃঙ্খলার মধ্যে দিয়ে যাওয়ার জন্য। আইন করার সময় দীর্ঘদিন অংশীজনদের সঙ্গে আলোচনা করা হয়, মতামত গ্রহণ করা হয়। তারপরও কিছু ত্রুটি থেকে যায়, যদিও সেটা সংশোধনের সুযোগ রয়েছে।

সূত্র : বাংলাদেশ প্রতিদিন